সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে ৫ বছরের শিশুকে হত্যা করে পেটে ছুরি ঢুকিয়ে গাছে ঝুলিয়ে রাখল খুনিরা

805

নিজস্ব প্রতিনিধি: সোমবার (১৪ অক্টোবর)সুনামগঞ্জ জেলার দিরাই উপজেলায় গাছে ঝোলানো অবস্থায় তুহিন (৫) নামে এক শিশুর ক্ষতবিক্ষত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত শিশু তুহিন উপজেলার রাজানগর ইউনিয়নের কেজাউড়া গ্রামের আব্দুল বাছির ও মনিরা বেগমের ছেলে।

পুলিশ ও নিহতের স্বজনরা জানান, রবিবার রাতে তুহিনের সঙ্গে ঘুমিয়েছিলেন তার বাবা। মধ্যরাতে ঘর থেকে বের হওয়ার সময় তুহিনের বাবা লক্ষ্য করেন ছেলে তুহিন বিছানায় নেই। ঘরের দরজাও খোলা। পরে বাছির স্বজন ও প্রতিবেশীদের ডেকে ঘটনাটি জানিয়ে তুহিনকে খুঁজতে শুরু করেন। এক পর্যায়ে বাড়ির সামনের রাস্তায় রক্তের দাগ দেখতে পান তুহিনের বাবা বাছির। ওই রক্তের দাগ ধরে এগিয়ে যেতেই গ্রামের পাশে একটি কদম গাছে সন্তানের লাশ ঝোলানো অবস্থায় দেখতে পান তিনি। এসময় তুহিনের শরীরে ধারালো অস্ত্রের আঘাত ছিল। তার পেটে দুটি ছুরি ঢোকানো ছিল, দুটি কান কাটা, এমনকি যৌনাঙ্গটিও কেটে ফেলা হয়েছে। পরে আজ ১৪ অক্টোবর সোমবার সকালে পুলিশকে খবর দেন স্থানীয়রা। পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে সুরৎহাল প্রতিবেদন তৈরি করে।

দিরাই থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি)’র দায়িত্বে থাকা এসআই আবু তাহের মোল্লা জানান, ঘটনাটি চাঞ্চল্যকর। পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘাতকদের ধরতে আমরা কাজ শুরু করেছি। নির্মম এ ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের দ্রুততম সময়ে আইনের আওতায় নিয়ে আসা হবে।