দেশে বলয়গ্রাস সূর্যগ্রহণ শুরু: চলবে দুপুর ২টা ৫ মিনিট ৩৬ সেকেন্ড পর্যন্ত

437

ইউএমবি ডেস্ক : আজ বৃহস্পতিবার (২৬ ডিসেম্বর) সারাবিশ্ব এমন এক সূর্যগ্রহণ দেখবে, যা শেষবার পৃথিবীর মানুষ দেখেছিল ১৭২ বছর আগে। এ সূর্য গ্রহণের সময় সূর্যের চারপাশে থাকবে এক আগুনের বলয়। বিজ্ঞানীরা যাকে বলেন ‘রিং অব ফায়ার’।

মহাকাশ বিজ্ঞানীরা জানান, আড়াই থেকে তিন ঘণ্টা ধরে চলবে এই মহাজাগতিক দৃশ্য। সূর্যকে ৯০ শতাংশের বেশি ঢেকে ফেলবে চাঁদ, যা খালি চোখেই অবলোকন করতে পারবেন পৃথিবীবাসী। সর্বোচ্চ দুপুর ১২টা ৮মিনিট ২৫ সেকেন্ড পর্যন্ত চলবে এই সূর্যগ্রহণ।

বাংলাদেশে আংশিক সূর্যগ্রহণ সকাল ৯টা ২মিনিটে শুরু হয়ে সম্পন্ন হবে বেলা ১২টা ৬ মিনিটে। আর সর্বোচ্চ সূর্যগ্রহণ সকাল ১০টা ২৮ মিনিটে হবে বলে জানিয়েছেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের বিজ্ঞানীরা।

আকাশ মেঘ এবং কুয়াশামুক্ত থাকা সাপেক্ষে সারাদেশ থেকে এ সূর্যগ্রহণ সিলেটেও দেখা যাবে। শুরু হবে সকাল ৯টা ৩৬ সেকেন্ডে, সম্পন্ন হবে ১২টা ৩ মিনিটে। কেন্দ্রীয় গ্রহণ সময় ১০টা ২৫ মিনিট ৩৬ সেকেন্ড।

সূর্যগ্রহণ খালি চোখে দেখা অত্যন্ত ক্ষতিকর বলে জানিয়েছেন অনুসন্ধিৎসু বিজ্ঞান চক্র সংগঠন। তবে সিলেট কেন্দ্রীয় শহিদমিনারে বৃহস্পতিাবর সকাল ৯টা থেকে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত সানফিল্টার চশমার মাধ্যমে ‘সূর্যগ্রহণ পর্যবেক্ষণ ক্যাম্প’ দেখার আয়োজন করেছে বিজ্ঞান আন্দোলন মঞ্চ।

ক্যাম্পে অংশগ্রহণকারী রেজিষ্ট্রেশনকৃতরা প্রত্যেককে একটি সানফিল্টার চশমা, সূর্যগ্রহণ সম্পর্কিত পুস্তিকা ও বিজ্ঞান আন্দোলন মঞ্চের ডেস্ক ক্যালেন্ডার পাবেন। তবে এজন্য আগে ৫০টাকা ফি দিয়ে নাম নিবন্ধন করাতে হবে।

সতর্কতা: খালি চোখে, বাইনোকুলার বা টেলিস্কোপের সাহায্যে সূর্যগ্রহণ না দেখতে অনুরোধ করেছেন বিজ্ঞান জাদুঘরের। এছাড়া জাদুঘরের পক্ষ থেকে সোলার টেলিস্কোপ এবং সোলার ফিল্টারের সাহায্যে সূর্যগ্রহণ দেখার ব্যবস্থা করা হয়েছে।